আর্জেন্টিনা হোঁচট খেল মেসির বাতিল গোলে!

0
51

স্পোর্টস ডেস্ক : শেষ পর্যন্ত পুরো নব্বই মিনিটই খেললেন মেসি। যদিও অনিশ্চয়তা ছিল প্যারাগুয়ের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচটি খেলতে পারবেন কি না তিনি। অপরদিকে ম্যাচের ফল নির্ধারণেও সেভাবে বড় কোনো ভূমিকা রাখতে পারেননি মেসি। টানা দুই জয়ের পর শুক্রবার বাংলাদেশ সময় ভোরে ঘরের মাঠে পয়েন্ট হারিয়েছে লিওনেল আলবিসেলেস্তেরা।

নিজেদের ঘরের মাঠে প্যারাগুয়ের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে আর্জেন্টিনা। ইকুয়েডরকে হারিয়ে কাতার বিশ্বকাপের বাছাই শুরুর পর বলিভিয়ার মাঠে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। আর পেরুর বিপক্ষে ঘরের মাঠে ড্রয়ে শুরু করা প্যারগুয়ে দ্বিতীয় ম্যাচে ভেনেজুয়েলার মাঠে জিতেছিল। আর্জেন্টিনার পরাজয় এড়ানো গোলটি করেছেন ডিফেন্ডার নিকোলাস গনজালেজ।

এর আগে প্যারাগুয়েকে এগিয়ে দিয়েছিলেন ফরোয়ার্ড অ্যাঞ্জেল রোমেরো। অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখে আক্রমণাত্মক শুরু করে প্যারাগুয়ে। যদিও তাদের আক্রমণে ছিল না তেমন ধার। ধীরে ধীরে গুছিয়ে উঠে পাল্টা আক্রমণ শুরু করে আর্জেন্টিনা। ২১তম মিনিটে রোমেরোর সফল স্পট কিকে এগিয়ে যায় প্যারাগুয়ে।

নিউক্যাসল ইউনাইটেডের মিডফিল্ডার মিগুয়েল আলমিরন বাঁ দিক থেকে ড্রিবল করে ডি-বক্সে ঢোকার পর তাকে ডিফেন্ডার লুকাস মার্তিনেস ফাউল করলে পেনাল্টিটি পায় সফরকারীরা।পিঠে চোট পেয়ে ২৯তম মিনিটে মাঠ ছাড়েন আর্জেন্টিনার মিডফিল্ডার এসেকিয়েল পালাসিওস। বদলি নামেন টটেনহ্যাম হটস্পার জিওভানি লো সেলসো।

প্রথমার্ধের শেষ ১৫ মিনিটে চাপ বাড়ানো আর্জেন্টিনা ৪১তম মিনিটে সমতায় ফেরে। লো সেলসোর কর্নারে দারুণ হেডে বল জালে পাঠান গনসালেস। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে দুটি দারুণ সুযোগ হাতছাড়া করেন লাউতারো মার্তিনেস। ৪৮তম মিনিটে ডি-বক্স থেকে একটুর জন্য শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি তিনি। দুই মিনিট পর বিপজ্জনক জায়গায় প্যারাগুয়ের এক জনের ব্যাকপাস পেয়ে যান ইন্টার মিলান স্ট্রাইকার।

খুব কাছ থেকেও পারেননি শট লক্ষ্যে রাখতে। ৫৭তম মিনিটে লো সেলসোর ব্যাকপাস পেনাল্টি স্পটের কাছে পেয়ে নিচু শটে বল জালে পাঠান মেসি। কিন্তু আক্রমণের শুরুতে একটি ফাউলের ঘটনায় ভিএআরের সাহায্যে গোল দেননি রেফারি। ফাউলের পর ২৭ সেকেন্ড পার হয়ে যাওয়ার পর, আট-নয়টা সফল পাস দিয়ে আক্রমণ রচনা করার পর, লো চেলসোর পাসে মেসির গোলের পর রেফারির হুঁশ হয় গোল তৈরির সময় ফাউল হয়েছে।

পরে আর্জেন্টিনা এমন আক্রমণ আর করতে পারেনি। শেষমেশ এই বাতিল হওয়া গোলটাই আক্ষেপ বাড়িয়েছে আর্জেন্টিনার। আক্ষেপ বাড়িয়েছে ৭২ মিনিটে ক্রসবারে লাগা মেসির ফ্রি-কিকটাও। এই দুই সময় বাদে মেসিকে বলতে গেলে খুঁজে পাওয়া যায়নি। বাকি সময় নিষ্প্রভই কাটিয়েছেন। গোটা ম্যাচে বল হারিয়েছেন ২৭ বারের মতো, ৭টা ক্রস করতে গিয়ে একবারও সফল হননি।

ঘরের মাঠে হোঁচট খেলেও তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত শীর্ষে উঠেছে আর্জেন্টিনা। দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ব্রাজিল। তিন ম্যাচে সমান ৬ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে একুয়েডর। আর ৫ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে প্যারাগুয়ে। পরের ম্যাচে বাংলাদেশ সময় আগামী বুধবার সকালে স্বাগতিক পেরুর বিপক্ষে খেলবে আর্জেন্টিনা। একই দিনে ঘরের মাঠে বলিভিয়ার মুখোমুখি হবে প্যারাগুয়ে।